সংবাদ শিরোনামঃ
বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড পৃথিবীর সব চেয়ে নৃশংস রাজনৈতিক ঘটনা: সেতুমন্ত্রী চকরিয়া প্রেসক্লাবের দ্বিবার্ষিক নির্বাচন সম্পন্ন জাহেদ চৌধুরী সভাপতি, মিজবাউল হক সম্পাদক নিউইয়র্কে লাঞ্ছিত ইমরান এইচ সরকার (ভিডিও) ঠাকুরগাঁও জেলা পুলিশের সহযোগীতায় গড়েয়া গরুর হাটে জাল নোট সনাক্তকরণ বুথ দেবীগঞ্জে জাতীয় শোক দিবস পালিত এ দেশের মানুষকে কেউ দাস বানিয়ে রাখতে পারবে না: ড. কামাল বীরগঞ্জে এতিম ও ছিন্নমূল শতাধিক পথ শিশুদের  মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ বান্দরবানে ইয়াংছা-বনপুর সড়ক যেন মরণফাঁদ ! লোহাগাড়া উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের শোক র‌্যালী ভ্যান চালিয়ে প্রধানমন্ত্রীর নামে জমি, এরপর…



রাখে আল্লাহ মারে কে, ট্রাক পিষে দেওয়া ছেলেটি বেঁচে আছে

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২ আগস্ট, ২০১৮






কথায় আছে ‘রাখে আল্লাহ, মারে কে’। ঠিক এরকমই আরেকটি ঘটনা ঘটে গেল রাজধানীতে। নিরাপদ সড়কের দাবিতে রাজপথে অবস্থান নেওয়া শিক্ষার্থীরা যানবাহনের চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স পরীক্ষা করার সময় এক ছাত্রকে চাপা দিয়ে একটি পিকআপ পালিয়ে যায়।

মুহূর্তেই এ ঘটনার ভিডিও ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। এসময় অমানবিকভাবে ট্রাকের নিচে চাপা পড়া শিক্ষার্থী ফয়সাল মাহুমদ মারা গেছে বলেও গুজব ছড়ায় অনেকে। তবে আশার কথা হলো ট্রাক পিষে দেওয়া ছেলেটি আশঙ্কামুক্ত বলে জানা গেছে।

রাজধানীর নারায়নগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকার প্রো-অ্যাকটিভ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ফয়সালে শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল আছে বলে জানিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

জানা যায়, রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে দুই বাসের রেষারেষিতে দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর প্রতিবাদ ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে বুধবার সকালে আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা। শনির আখড়া এলাকায় দনিয়া কলেজের সামনের শিক্ষার্থীরা লাইসেন্সবিহীন গাড়ি আটকে দিচ্ছিল।







ভিডিওতে দেখা যায়, একটি পিক-আপকে আটকানোর চেষ্টা করছেন ছাত্ররা। এক পর্যায়ে সামনে থাকা এক ছাত্রের ওপর দিয়ে গাড়ি উঠেয়ে দেয় চালক। পরে সেই ছাত্রের মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় আহত ওই ছাত্রকে প্রোঅ্যাকটিভ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হাসপাতালটির ম্যানেজার ডা. সালাউদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, ফয়সালকে আমি নিজে দেখেছি। ফয়সাল কথা বলতে পারছে। তার পরিবারের সদস্যরাও হাসপাতালে আছেন। তার কোমরের বাঁ পাশের অংশের হাড়ে ফ্রাক্চার হয়েছে, কেটে গেছে দুই ঠোঁটের নিচের অংশ। তবে তিনি এখন ভাল আছেন। ফয়সাল হাসপাতালটির কনসালটেন্ট ও পঙ্গু হাসপাতালের সাবেক সহযোগী অধ্যাপক ডা. এটিএম বাহারউদ্দিনের অধীনে চিকিৎসাধীন আছেন ।







ফয়সাল কেমন আছেন -জানতে চাইলে এটি এম বাহারউদ্দিন বলেন, আল্লাহর রহমতে বড় রকমের ঝুঁকি থেকে বেঁচে গেছেন ফয়সাল। তার অপারেশন নাও লাগতে পারে। তার মাথায় কোন ইনজুরি নেই, মেরুদণ্ডে আঘাত পেলে প্যারালাইসিস হয়ে যাবার আশঙ্কা ছিল। সেটিও নেই। তার পা টানা দিয়ে রাখা হয়েছে। তবে মাসখানেক তাকে হাসপাতালেই থাকতে হবে। ঠোঁট কেটে যাওয়ায় সেলাই দেওয়া হয়েছে।

তিনি জানান, সাড়ে এগারটার দিকে যখন তাকে হাসপাতালে আনা হয় তখন অজ্ঞান অবস্থায় ছিলেন রোগী। পরে তার জ্ঞান ফিরলে বমি করেছে। যে লক্ষণটি হেড ইনজুরির লক্ষণ। স্যালাইন শেষ হলে আমরা তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিউরো বিভাগে পাঠাতে পারি।







জানা গেছে, ফয়সালের পিতার নাম শামসুল হক। তারা রাজধানীর কদমতলী এলাকায় বসবাস করে। ফয়সাল নারায়ণগঞ্জ সরকারি তোলারাম কলেজে একাদশ শ্রেণীর ছাত্র। নিরাপদ সড়কের দাবিতে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে যোগ দিতেই যে যাত্রাবাড়ী এলাকায় আসে।







নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

ফেসবুকে আমরা …