চন্দনাইশে অগ্নিকান্ডে ১০ দোকান ভষ্মিভূত কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮

চট্রগ্রাম ব্যুরো :

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পাশে চন্দনাইশ উপজেলার দোহাজারী পৌরসদর এলাকায় ১৪ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ১০টায় দোকানের পিছনে রান্না ঘরের গ্যাস সিলিন্ডার থেকে এক ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ১০ দোকান ভষ্মিভূত হয়ে প্রায় ১ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্থরা জানান। অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে সাতকানিয়া, চন্দনাইশ ও পটিয়ার তিনটি ফায়ার সার্ভিস ইউনিট দীর্ঘ ২ ঘন্টাব্যাপী অভিযান চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। এসময় চট্টগ্রাম- কক্সবাজার মহাসড়কে উভয় পাশের দুর পাল্লার শত শত যানবাহন আটকা পড়ে যাত্রীদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, তাহের মেট্টোস (লেপ তোষকের) দোকানের পিছনে রান্না করার সময় হঠাৎ গ্যাস সিলিন্ডার থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটলে নিমিষে শাহ আলমের দোহাজারী মিষ্টি ঘর, সিরাজুল ইসলামের দোহাজারী ভাতঘর, জকরিয়ার মুদির দোকান, আলাউদ্দীনের কুলিং কর্ণার, ইসলামের লেপ তোষকের দোকান, আরকান সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের অফিস সম্পূর্ণ ভষ্মিভূত হয়। এছাড়া আংশিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয় সুজনের মোবাইলের দোকান, সুজনের সারের দোকান, নবী সওদাগরের কুলিং কর্ণার ও একটি সেলুনের দোকান। খবর পেয়ে চন্দনাইশ,সাতকানিয়া ও পটিয়া ফায়ার সার্ভিসের ৩টি ইউনিট ২ঘন্টাব্যাপী অভিযান চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। তবে অগ্নিকান্ডে কোন প্রাণহানি বা হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। অগ্নিকান্ডের সময় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে ২ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ থাকায় হাজার হাজার যাত্রীদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। অগ্নিকান্ডে খবর পেয়ে চট্টগ্রাম-১৪ আসনের সাংসদ আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম চৌধুরী, কেন্দ্রীয় আ’লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, দক্ষিণ জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আ.ন.ম বদরুদ্দোজাসহ সরকারী ও বেসরকারী কর্মকর্তারা ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করেন এবং আর্থিক সহযোগীতার আশ্বাস প্রদান করেন।

এদিকে দোকানের ক্ষতিগ্রস্থরা প্রায় কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে দাবী করলেও চন্দনাইশ ফায়ার সার্ভিসের অফিসার আবদুল্লাহ জানান, সম্পূর্ন এবং আংশিক ১২টি দোকান ভষ্মিভূত হয়েছে অগ্নিকান্ডে প্রাথমিক ধারণা হিসেবে প্রায় ১৫ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে ।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

ফেসবুকে আমরা …